Indian High Commissioner Inaugurates new Indian Investment in Bangladesh সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

ভারতীয় হাই কমিশনার বাংলাদেশে নতুন ভারতীয় বিনিয়োগের উদ্বোধন করেন

ভারতীয় হাই কমিশন

ঢাকা

সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

ভারতীয় হাই কমিশনার বাংলাদেশে নতুন ভারতীয় বিনিয়োগের উদ্বোধন করেন

হাই কমিশনার প্রণয় ভার্মা এবং বাংলাদেশের মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি শিল্প ও বিনিয়োগ উপদেষ্টা, জনাব সালমান ফজলুর রহমান, এমপি, ২৫ মে ২০২৪-এ যৌথভাবে মেঘনা ইন্ডাস্ট্রিয়াল ইকোনমিক জোনে ভারতের শীর্ষস্থানীয় ফার্মাসিউটিক্যাল কোম্পানি, সান ফার্মার একটি নতুন প্ল্যান্ট উদ্বোধন করেছেন।

২. সান ফার্মা হলো বিশ্বের চতুর্থ বৃহত্তম বিশেষায়িত জেনেরিক ফার্মাসিউটিক্যাল কোম্পানি, ১০০টিরও বেশি দেশে যার কার্যক্রম রয়েছে। প্রতি বছরে ১ বিলিয়নেরও বেশি ট্যাবলেট ও ​​ক্যাপসুল উৎপাদন ক্ষমতা নিয়ে এটি বাংলাদেশে কোম্পানিটির দ্বিতীয় বিনিয়োগ।

৩. এই অনুষ্ঠানে বক্তব্য প্রদানকালে, হাই কমিশনার এই নতুন বিনিয়োগকে ভারত ও বাংলাদেশের মধ্যে ক্রমবর্ধমান অর্থনৈতিক ও শিল্পসংক্রান্ত সম্পৃক্ততার অংশ এবং দেশ দুইটির সম্পর্কের সাম্প্রতিক রূপান্তরের একটি দৃশ্যমান প্রতীক হিসেবে তুলে ধরেন। তিনি জোর দিয়ে বলেন, বাংলাদেশের যে কোনো অর্থনৈতিক অঞ্চলে প্রথম ফার্মাসিউটিক্যাল ইউনিট এই প্ল্যান্টটি বাংলাদেশের সাথে অংশীদারত্বের উন্নয়নে ভারতের অব্যাহত প্রতিশ্রুতির প্রমাণই শুধু নয়, বরং বাংলাদেশে বিনিয়োগের জন্য ভারতীয় ব্যবসায়-বাণিজ্যের ক্রমবর্ধমান আগ্রহকেও প্রতিফলিত করে।

৪. হাই কমিশনার স্বাস্থ্য খাতে দৃঢ় দ্বিপাক্ষিক সহযোগিতার কথা উল্লেখ করেন, যার মধ্যে রয়েছে কোভিড-১৯ অতিমারি চলাকালীন ঘনিষ্ঠ সম্পৃক্ততা যখন ভারত বাংলাদেশকে ‘ভ্যাকসিন মৈত্রী’-র অধীনে ভ্যাকসিন সরবরাহ করেছিল এবং অক্সিজেন এক্সপ্রেস ট্রেন পাঠিয়েছিল, এবং বাংলাদেশ ভারতকে গুরুত্বপূর্ণ ঔষধ উপহার দিয়েছিল। বিগত কয়েক দশকে বাংলাদেশের ফার্মাসিউটিক্যাল শিল্পের উল্লেখযোগ্য অগ্রগতির কথা স্বীকার করে হাই কমিশনার জেনেরিক ঔষধ উৎপাদনে বাংলাদেশের আবির্ভাবকে অতি গুরুত্বপূর্ণ হিসেবে উপস্থাপন করেন।

৫. হাই কমিশনার উল্লেখ করেন, বাংলাদেশের অ্যাকটিভ ফার্মাসিউটিক্যাল ইনগ্রেডিয়েন্টস (এপিআই) চাহিদার প্রায় ৩০% পূরণ করে ভারত বাংলাদেশের ফার্মাসিউটিক্যাল শিল্পের প্রবৃদ্ধির ইতিহাসে নির্ভরযোগ্য অংশীদারে পরিণত হয়েছে। প্রচুর সরকারি প্রণোদনায় সমর্থনপুষ্ট অভ্যন্তরীণ উৎপাদনের ওপর নতুন করে নজর দিয়ে তিনি বলেন, ভারতীয় উৎপাদনকারীগণের জন্য যৌথ উদ্যোগ, যৌথ গবেষণা ও উন্নয়ন প্রচেষ্টা এবং প্রযুক্তি চুক্তির আকারে বাংলাদেশের প্রতিষ্ঠানগুলোর সঙ্গে ব্যবসায়িক অংশীদারত্ব স্থাপনের যথেষ্ট সুযোগ রয়েছে।

৬. হাই কমিশনার তুলে ধরেন যে, আজকের অনুষ্ঠানের মাধ্যমে বাংলাদেশে নতুন ভারতীয় বিনিয়োগের দৃষ্টান্ত শুধুমাত্র দ্বিপাক্ষিক অর্থনৈতিক সম্পর্ককেই শক্তিশালী করে না বরং এই দুই অর্থনীতির মধ্যে শক্তিশালী সাপ্লাই চেইন ও ভ্যালু চেইন লিংকেজ স্থাপনের দিকে আরও একটি ধাপকে চিহ্নিত করে,

যেটাকে তিনি ভবিষ্যতমুখী এই দুইটি দেশের মধ্যকার অর্থনৈতিক সম্পর্ককে জোরদার করার উপায় হিসেবে উল্লেখ করেন।

২৫ মে ২০২৪
ঢাকা